fbpx

Blog

ভাল ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার নির্বাচনের কৌশল এবং তাদের কাজ

রপ্তানি বা আমদানিকারক ছাড়াও আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন আরো অনেকে। রপ্তানি বাণিজ্যের ঠিক তেমনি এক গুরুত্বপূর্ণ পক্ষ হল ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার । কী কাজ করে এই ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার? আর একজন সঠিক ও কার্যকর ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার নির্বাচনই বা করবেন কীভাবে? চলুন, দেখে নেওয়া যাক!

ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার কী?

রপ্তানি বাণিজ্যের ক্ষেত্রে রপ্তানিকারকের পক্ষে পোর্টে যে নির্দিষ্ট ব্যক্তি সমস্ত ফর্মালিটিস পূরণ করেন, তাকে ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার বলা হয়। প্রয়োজনীয় ডকুমেমেন্টস যাচাই করা এবং লজিস্টিকাল সাপোর্ট দেওয়া ইত্যাদি একজন ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারের কাজের অন্তর্ভূক্ত। মূলত, ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার একজন রপ্তানিকারক বা রপ্তানি প্রতিষ্ঠানকে বাংলাদেশী কাস্টমস ক্লিয়ার করতে সাহায্য করে (রপ্তানিকারকের দেশের কাস্টমস)।

ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারের মূল দায়িত্বগুলো কী?

ফিগার ১ঃ ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারের দায়িত্ব

একজন ভালো ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার নির্বাচন করার উপায় কী?

আপনি একজন কার্যকর ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার খুঁজছেন? সেক্ষেত্রে নিচের গুণাবলীগুলোর কথা মাথায় রেখে বাণিজ্যের জন্য একজন ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারকে বেছে নিনঃ

বড় ধরণের পণ্যের কাজ সামলাতে সক্ষম

আপনার বাণিজ্যে যদি মাল্টি-মডেল শিপমেন্টের প্রয়োজন হয়, কিংবা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য যদি আপনার পণ্য কোন ওয়ারহাউজে রাখার দরকার পড়ে, সেক্ষেত্রে মন একজন ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারকে বেছে নিন যিনি আকাশপথে, সমুদ্রপথে, স্থলপথে সাহায্য করতে পারবেন এবং লজিস্টিকস সলিউশন্স দিতে পারবেন। সেক্ষেত্রে প্রথমেই সমভাবই ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারকে নিজের সাপ্লাই চেইনের সবগুলো ব্যাপার সম্পর্কে জানিয়ে দিন। এতে করে তিনি আপনার কাজগুলোতে কতটুকু সাহায্য করতে পারবেন তা বোঝা সম্ভব হবে।

বিদেশী এজেন্ট বা এজেন্সির সাথে ভালো সম্পর্ক

আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের জন্য যথাযথ পরিমাণে লজিস্টিকস প্রয়োজন হয়। সেক্ষেত্রে আপনার কোম্পানির জন্য এমন ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারকে বেছে নেওয়া প্রয়োজন যার বিশ্বব্যাপী এজেন্টের স্তাহে ভালো সম্পর্ক রয়েছে। কোন একটি নির্দিষ্ট বাণিজ্যের ক্ষেত্রে ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার নিয়োগদানে আগে নিশ্চিত হয়ে নিন যে, আমদানিকারকের দেশে তার যথাযথ সম্পর্ক ও যোগাযোগ রয়েছে। এতে করে আপনার কাছে বাণিজ্যের সমস্ত তথ্য খুব সহজেই চলে আসবে। পণ্য ঠিক সময়ে এবং ঠিকভাবে গন্তব্যস্থলে পৌঁছেছে কিনা তা জানা সম্ভব হবে।

লজিস্টিকস সেবা নির্ধারণে দক্ষ

আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে প্রতিটি ইন্ডাস্ট্রির ভিন্ন ভিন্ন চাহিদা থাকে। ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার নিয়োগ দেওয়ার সময় আপনার যে সেবা প্রয়োজন তা তিনি প্রদান করতে পারবেন কিনা সে সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নিন। এতে করে আপনার সমস্ত আন্তর্জাতিক শিপমেন্ট খুব সহজেই চলাচল করতে পারবে। কারণ, ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারের লজিস্টিকস দক্ষতার উপরেই স্বাভাবিক শিপমেন্ট অনেকটাই নির্ভর করে।

আর্থিক সামর্থ্য

যদিও আপনি টাকা প্রদান করছেন, তা স্বত্ত্বেও ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারের আর্থিক সামর্থ্য সম্পর্কে খোঁজ নিন। এমনটা হতেই পারে যে, আপনি ফরোয়ার্ডারকে ফ্রেটের জন্য টাকা দিয়ে ফেলেছেন। কিন্তু তারপরেও শুধু ফরোয়ার্ডার ওশেন ক্যারিয়ারকে টাকা দিতে না পারায় রপ্তানি পণ্য যাত্রা শুরু করেনি। এমন ক্ষেত্রে আপনার কার্গো ছাড়তে দেরী হতে পারে এবং নানারকম কারণে পরবর্তীতে আপনার খরচ বেড়ে যেতে পারে।

প্রযুক্তিগত দক্ষতা

একজন মানসম্পন্ন ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারের প্রযুক্তিগত দক্ষতা থাকা প্রয়োজন, যেটির মাধ্যমে আপনি বাড়তি সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। পণ্য ট্র্যাকিং তো রয়েছেই, এছাড়াও প্রতিনিয়ত সাপ্লাই চেইনের ক্ষেত্রে নতুন নতুন সব প্রযুক্তিগত উন্নয়ন হচ্ছে। সেসব ব্যাপারেও আপনার জানা থাকা প্রয়োজন।

যথাযথ যোগাযোগ এবং ট্র্যাকিং করার ক্ষমতা

আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে প্রতিটি পদক্ষেপের ট্র্যাকিং করা, শিপমেন্টের যাতায়াত লক্ষ্য করা ও রিপোর্ট প্রদান করা একজন ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারের দায়িত্ব। এতে করে শিপমেন্ট ঠিক সময়ে ও ঠিকভাবে পরিকল্পনানুসারে যাচ্ছে কিনা তা জানা সম্ভব হয়। কোন কারণে শিপমেন্ট পরিকল্পনা অনুসারে না চললে এই রিপোর্টের মাধ্যমেই সেটাকে সঠিক ট্র্যাকে আনা সম্ভব হয়।

বিশ্বাসযোগ্য কার্গো ইনস্যুরেন্স পলিসি

ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারের একটি বিশ্বাসযোগ্য কার্গো ইনস্যুরেন্স পলিসি থাকা প্রয়োজন। এটি কার্গোর কোনরকম ক্ষতি হওয়ার, তৃতীয় পক্ষের দায়িত্ব এবং আনকালেক্টেড কার্গো কস্ট সংক্রান্ত সমস্ত আইনি ও চুক্তিভিত্তিক দিকগুলো কভার করে।

নেগোশিয়েট করার সামর্থ্য

ব্যবসার কাজে কোন সেবা গ্রহণের সময় অবশ্যই দামের তুলনা করার দরকার পড়ে। তবে ফ্রেইট ফরোয়ার্ডের ক্ষেত্রে ব্যাপারটি কোন পণ্য কেনার মতো এতো সহজ নয়। মূল্যের ভিত্তিতে ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারদের তুলনা করতে গেলে প্রথমেই তাদেরকে বাদ দেওয়া হয় যারা প্রয়োজনীয় সবগুলো সেবা প্রদান করছে না। হয়তো কোন ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার আপনাকে কম খরচে কাজের অফার দিচ্ছে, কিন্তু তার মাধ্যমে যদি আপনি আপনার দরকারি সবগুলো কাজ না করাতে পারেন, সেক্ষেত্রে সেই ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারকে বাদ দেওয়াই সমীচীন।

রপ্তানি বাণিজ্যে নতুন? মনে রাখুন এই কথাগুলো!

নতুন রপ্তানিকারক হিসেবে প্রথমেই একজন ভালো মানের ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার খুঁজে পাওয়া আপনার জন্য কঠিন হতে পারে। সেক্ষেত্রে ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারের সার্ভিস রেকর্ড দেখে নিন। সেক্ষেত্রে আপনি নির্দিষ্ট কোন ফ্রেইট ফরোয়ার্ডারের নেগোশিয়েটিং পাওয়ার কতটা বেশি তা বুঝতে পারবেন। বাংলাদেশে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সুনাম এবং রিভিউ-এর উপরে ভিত্তি করেই একজন ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার বেছে নেওয়া হয়।

বাংলাদেশের জনপ্রিয় কিছু ফ্রেইট ফরোয়ার্ডিং কোম্পানি

  • মেরিটাইম সার্ভিস লিমিটেড
  • গ্রিন বাংলা শিপিং লিমিটেড
  • সামাদসন্স গ্রুপ
  • এপেক্স ইউনিমেরিন লিমিটেড
  • অ্যাওয়ার্ডস ট্রান্সপোর্টেশন লিমিটেড
  • বার্থা
  • বেনিসন ইন্টারন্যাশনাল
  • সিডিএন (বিডি) লিমিটেড
  • ডি. এস. লাইন লিমিটেড
  • ফাস্ট ফ্রেইট সার্ভিস ইত্যাদি

বাণিজ্যের সফলতার পেছনে একজন সঠিক ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার অনেকাংশেই কাজ করে থাকে। তাই দ্রুত এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত না নিয়ে সময় নিয়ে ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার নির্বাচন করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *